•   Wednesday, 12 Jun, 2024
প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকৌশল গুচ্ছের তিন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা ৩ মার্চ

Generic placeholder image
  প্রকৌশল সমাচার অনলাইন

নিজস্ব প্রতিবেদক: ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের প্রকৌশল গুচ্ছের তিন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। অনলাইনে আবেদন শুরু ২৪ জানুয়ারি সকাল ৯টায়। চলবে ৭ ফেব্রুয়ারি রাত ১১টা ৫৯মিনিট পর্যন্ত। আবেদন ফি দেওয়ার শেষ সময় ৮ ফেব্রুয়ারি। ভর্তি পরীক্ষা হবে ৩ মার্চ। ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যোগ্য প্রার্থীদের রোল নম্বর ও পরীক্ষা কেন্দ্রসহ নামের তালিকা প্রকাশ করা হবে ১৮ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টায় প্রকাশ করা হবে। মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) এ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন প্রকৌশল গুচ্ছের কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটি। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট), খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) ও রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (রুয়েট) মোট আসন থাকবে তিন হাজার ২৩১টি। এর মধ্যে সংরক্ষিত আসন থাকবে ৩১টি। 

প্রবেশপত্র ডাউনলোড শুরু হবে ১৯ ফেব্রুয়ারি (সোমবার) সকাল ১০টা থেকে। ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমূহ এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের ভর্তি পরীক্ষা ৩ মার্চ সকাল ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১২টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমূহ, নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ এবং স্থাপত্য বিভাগের পরীক্ষা হবে একই দিন সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা ৪৫মিনিট পর্যন্ত।

 

আবেদন করার পদ্ধতি: 

চুয়েট, কুয়েট ও রুয়েট এর সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইট (https://admissionckruet.ac.bd) এ প্রদত্ত নির্দেশনা মোতাবেক অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ ও ভর্তি পরীক্ষার ফি প্রদান করে Submit করতে হবে। 

ভর্তি পরীক্ষা প্রদের ফি (সার্ভিস চার্জ ব্যতীত) ১ হাজার ৩৫০ টাকা ও ১ হাজার ৪৫০ টাকা। ৭ ফেব্রুয়ারি (বুধবার) রাত ১১টা ৫৯ মিনিটের পরে অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া বন্ধ হয়ে যাবে। এরপর আর কোন আবেদনপত্র Submit করা যাবে না। এমসিকিউ পরীক্ষায় প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য মোট প্রাপ্ত নম্বর থেকে সংশ্লিষ্ট প্রশ্নের জন্য নম্বরের ২৫ শতাংশ কাটা হবে।

 

ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য আবেদনের যোগ্যতা :

ক) প্রার্থীকে অবশ্যই বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।

(খ) প্রার্থীকে বাংলাদেশের যে কোন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড/মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড/কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে ২০২০ অথবা ২০২১ সালের মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে জিপিএ ৪.০০ অথবা সমতুল্য গ্রেড পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।

 

(গ) প্রার্থীকে বাংলাদেশের যে কোন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড/মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড/কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে ২০২৩ সালে অনুষ্ঠিত উচ্চ মধ্যমিক/আলিম/সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে অথবা ২০২২ সালের নভেম্বর বা তার পরে GCE 'A' লেভেল সার্টিফিকেট প্রাপ্ত হতে হবে। প্রার্থীকে গণিত, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন বিষয়ে মোট গ্রেড পয়েন্ট কমপক্ষে ১৪.০০ পেতে হবে এবং ইংরেজী বিষয়ে কমপক্ষে গ্রেড পয়েন্ট ৩.৫০ সহ গণিত, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও ইংরেজী বিষয় সমূহের সর্বমোট গ্রেড পয়েন্ট ১৮.০০ হতে হবে।

 

ইংরেজী ভার্সন/বিদেশী শিক্ষা বোর্ড থেকে সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীকে উক্ত বিষয়সমূহে সমতুল্য গ্রেড পেতে হবে। এছাড়া বায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তির জন্য সংশ্লিষ্ট প্রার্থীকে উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় জীববিজ্ঞানে কমপক্ষে প্রেড পয়েন্ট ৪.০০ পেতে হবে।

 

(ঘ) প্রার্থীকে GCE 'O' এবং GCE ‘A’ লেভেল উত্তীর্ণ হয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহনের জন্য GCE 'O' লেভেল পরীক্ষায় গণিত, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও ইংরেজী বিষয়ে আলাদাভাবে ‘A’ গ্রেড পেতে হবে। GCE 'A' লেভেল পরীক্ষায় পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও গণিত বিষয়ে আলাদাভাবে ‘A’ গ্রেড পেতে হবে। এছাড়া ৰায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তি হতে হলে সংশ্লিষ্ট প্রার্থীকে GCE 'A' লেভেল পরীক্ষায় জীববিজ্ঞানে কমপক্ষে 'B' গ্রেড পেতে হবে।

(ঙ) কমপক্ষে ১২ শিক্ষাবর্ষ অধ্যয়নকাল থাকা সাপেক্ষে বিদেশী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ২০২২ ইং সালের উচ্চ মাধ্যমিক/সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীর ক্ষেত্রে গণিত, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও ইংরেজী বিষয়ের প্রত্যেকটিতে আলাদাভাবে কমপক্ষে ৮০% নম্বর বা সমমানের গ্রেড পেতে হবে। সংশ্লিষ্ট প্রার্থীকে মাধ্যমিক/সমমানের পরীক্ষায় গড়ে কমপক্ষে ৭০ শতাং নম্বর বা সমমানের গ্রেড পেতে হবে।

(চ) সঠিক আবেদনকারীর মধ্য হতে উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় গণিত, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন এবং ইংরেজী বিষয়ের মোট প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে প্রথম ৩০ (ত্রিশ) হাজার যোগ্য প্রার্থীকে (ভর্তি নির্দেশিকার ‘ভর্তি পরীক্ষার যোগ্য প্রার্থী নির্ধারণ’ অনুযায়ী) ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া হবে।

ন্যূনতম যোগ্যতা পূরণ সাপেক্ষে GCE 'O' লেভেল / GCE 'A' লেভেল এবং সংরক্ষিত আসনের জন্য সকল সঠিক আবেদনকারী ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহনের জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবে।

Comment As:

Comment (0)