•   Wednesday, 12 Jun, 2024
বায়ু বিদ্যুৎ উৎপাদনে এশিয়ার রোল মডেল হবে বাংলাদেশ ইঞ্জি. মো. আবদুস সবুর এমপ

বায়ু বিদ্যুৎ উৎপাদনে এশিয়ার রোল মডেল হবে বাংলাদেশ: ইঞ্জি. আবদুস সবুর

Generic placeholder image
  প্রকৌশল সমাচার অনলাইন

জাতীয় সংসদের সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর বলেন, বায়ু বিদ্যুৎ উৎপাদনে দক্ষিন এশিয়ার রোল মডেল হবে বাংলাদেশ। বায়ু বিদ্যুৎ উৎপাদনে দেশের প্রকৌশলীরা সক্ষমতা অর্জন করবে। আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রকৌশলী আরও বেশি দক্ষতা দেখাবে।  

রবিবার (০২ জুন) রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে আইইবি'র তড়িৎকৌশল বিভাগের উদ্যোগে  "বাংলাদেশে বায়ু শক্তি উৎপাদনের জন্য কম বাতাসের গতিতে চ্যালেঞ্জ এবং সম্ভাব্য সমাধান অন্বেষণ" শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর এইসব কথা বলেন।  এতে বায়ু বিদ্যুৎ খাতের নেতৃবৃন্দ এবং বিশেষজ্ঞরা উপস্থিত ছিলেন।

সেমিনারে ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রকৌশলীদের ভূমিকার কথা তুলে ধরেন। তিনি বাংলাদেশের বায়ু শক্তি অবকাঠামোকে শক্তিশালী করার গুরুত্বের উপর জোর দিয়ে বলেন, "আইইবি বাংলাদেশে বায়ু ইঞ্জিনিয়ারিং এর মান উন্নত করার জন্য নিষ্ঠার সাথে কাজ করছে। যা শক্তিশালী বায়ু বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।" জনাব সবুর বায়ু শক্তিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রকৌশলীদের উল্লেখযোগ্য অবদানের কথা স্বীকার করেন। তিনি এমন একটি ভবিষ্যৎ কল্পনা করেন যেখানে ইঞ্জিনিয়াররা "একটি স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার পরিকল্পনা বাস্তবায়নে" সহায়ক হবে। 
তিনি বলেন, আমাদের ৩০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ বায়ু খাতসহ বিভিন্ন উৎস থেকে উৎপাদন করা সম্ভব। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বায়ু শক্তির চ্যালেঞ্জ কাটিয়ে ওঠার জন্য সেমিনারে প্রাপ্ত সুপারিশের প্রতি "নিবিড়ভাবে মনোযোগ" দেওয়ার আহ্বান জানান।

সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী এস এম মনজুরুল হক মঞ্জু। তিনি কার্যকর সমাধান বাস্তবায়নের জন্য ইঞ্জিনিয়ার এবং নীতিনির্ধারকদের মধ্যে সহযোগিতার গুরুত্বের উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করে।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান (গ্রেড-১) ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান। তিনি জাতীয় গ্রিডে বায়ু শক্তি একীভূত করার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের ভূমিকার গুরুত্ব তুলে ধরে।  তিনি বলেন, নবায়নযোগ্য জ্বালানির উন্নয়নে সারা বিশ্বে গবেষণা চলছে। বাংলাদেশে উইন্ড পাওয়ার নিয়ে অভিজ্ঞতা বাড়াতে পিডিবি কাজ করছে।

মূখ্য আলোচনা করেন পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসাইন। তিনি বাংলাদেশের বর্তমান বিদ্যুৎ অবস্থা এবং বায়ু শক্তি উন্নয়নের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার রূপরেখা তুলে ধরেন। 
তিনি বলেন, আমাদের এখন সোলার সিস্টেম ছাড়াও উইন্ড পাওয়ার নিয়ে পরিকল্পনার সুযোগ এসেছে। 

মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন যুক্তরাজ্যের কভেন্ট্রি ইউনিভার্সিটি সিনিয়র লেকচারার প্রকৌশলী ড. নুরুল আজিম ভূঞা। মূল প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে তার আন্তর্জাতিক দক্ষতা শেয়ার করেছেন। তার অন্তর্দৃষ্টি, বায়ু শক্তি প্রযুক্তির অগ্রগতি বা অন্যান্য দেশের সফল কৌশলগুলোর উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করে, যা বাংলাদেশের জন্য অমূল্য সম্পদ হিসেবে প্রমাণিত হতে পারে।

আইইবির তড়িৎ কৌশল বিভাগের সম্পাদক প্রকৌশলী এস এম আল-ইমরানের সঞ্চালনায় সেমিনারে  সভাপতিত্ব করেন বিভাগের চেয়ারম্যান  প্রকৌশলী মোহাম্মদ জুলফিকার আলী। 


এছাড়াও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)’র তড়িৎকৌশল বিভাগের ভাইস চেয়ারম্যান প্রকৌশলী কাজী মুস্তাক উল্লাহসহ অনেকেই মূল আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। 

সেমিনারটি বাংলাদেশকে টেকসই জ্বালানি ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য একটি সহযোগিতামূলক প্রচেষ্টাকে নির্দেশ করেছে। প্রকৌশলী, নীতিনির্ধারক এবং আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের মধ্যে উন্মুক্ত সংলাপকে উৎসাহিত করেছে। বায়ু শক্তির পূর্ণ সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে কার্যকর সমাধান তৈরি করতে, এমনকি কম বাতাসের গতির চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সেমিনারটি ছিল জ্ঞানগর্ভ ও দিকনির্দেশনামূলক।

Comment As:

Comment (0)